নারায়ণগঞ্জে চারটি ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন ও সরবারহ বন্ধ


Munna প্রকাশের সময় : ০৩/০৯/২০২৩, ৭:২৯ অপরাহ্ণ /
নারায়ণগঞ্জে চারটি ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন ও সরবারহ বন্ধ

নিজস্ব সংবাদদাতা।। 
সারাদেশের ন্যায় নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ ও ফতুল্লার চারটি ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন ও সরবরাহ বন্ধ রেখে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট পালন
করছে তিনটি সংগঠন। রবিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে বাংলাদেশ ট্যাংকলরী ওনার্স এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলার্স,
ডিস্ট্রিবিউটর্স, এজেন্টস এন্ড পেট্রোল পাম্প ওনার্স এসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন যৌথভাবে এই ধর্মঘট কর্মসূচী পালন করছে।

ফলে জেলার সদর উপজেলার ফতুল্লা এবং সিদ্ধিরগঞ্জে অবস্থিত পদ্মা, মেঘনা ও যমুনার মোট চারটি ডিপো থেকে সব ধরণের জ্বালানি তেল উত্তোলন এবং
সরবরাহ বন্ধ রেখেছে এই তিনটি সংগঠন।
আন্দোনকারী সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দরা জানান, জ্বালানী তেল বিক্রয়ের উপর প্রচলিত কমিশন কমপক্ষে ৭ দশমিক ৫০ শতাংশ নির্ধারণ, জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা কমিশন এজেন্ট হওয়ায় প্রতিশ্রæতি মোতাবেক সুষ্পষ্ট
গেজেট প্রকাশ এবং ট্যাংকলরীর ইকোনোমিক লাইফ ২৫ বছরের উর্ধে নির্ধারণ করে পৃথকভাবে গেজেট প্রকাশ করতে তারা দীর্ঘদিন যাবত সরকারের কাছে তিন দফা দাবি জানিয়ে আসছেন।

কিন্তু সরকার দাবি মেনে না নেয়ায় তারা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছেন। সংগঠনগুলোর সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জে জ্বালানি তেলের চারটি ডিপো থেকে প্রতিদিন এক হাজারের অধিক যানবাহনের মাধ্যমে
ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন এলাকায় তেল সরবরাহ হয়ে থাকে। ডিপোগুলো থেকে ৬৫০ লড়ি পেট্রোল, ডিজেল, অকটেন, কেরোসিন ও ফার্নিস অয়েল সরবরাহ করা হয়ে থাকে। বিশেষ করে সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলে অবস্থিত
দুইটি ডিপো থেকে বিমানে ব্যবহৃত ১৫০ গাড়ি জেট ফুয়েল প্রতিদিন সরবরাহ করা হয়।

তিন সংগঠনের ধর্মঘটের কারণে নারায়ণগঞ্জের ডিপোগুলো থেকে সব ধরণের জ্বালানি তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।এ বিষয়ে ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন, গোদনাইল মেঘনা শাখার সভাপতি আশরাফ উদ্দিন জানান, তিন দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে সারা বাংলাদেশে এই
কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

আজকের দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে বসে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ফতুল্লা ডিপো যমুনা ও মেঘনা শাখা কমিটি বাংলাদেশ ট্যাংকলরী ওনার্স
এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ হুমায়ূন জাকির মিলন বলেন,জ্বালানি তেল বিক্রির উপর কমিশন বৃদ্ধিসহ ৩ দফা দাবি আমাদেরদীর্ঘদিনের।

দাবীগুলো অত্যন্ত যুক্তিসংগত। দাবী পূরণে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বেধে দেওয়া সময়সীমার মধ্যে সরকার দাবি পূরণ না করায় রবিবার সকাল ৮টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ডিপো থেকে তেল উত্তোলন ও সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

আমাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।এ ব্যাপারে গোদনাইল মেঘনা ডিপোর ইনচার্জ মো: লুৎফর রহমান জানান, আমরা চেষ্টা করছি বিকল্প পথে তেল সরবরাহ চালু রাখতে।

এদিকে পদ্মা ডিপোর সিনিয়র কর্মকর্তা ফজলে এলাহী চৌধুরী জানান, বিমানে ব্যবহারের জ্বালানি তেল বিমান বন্দরে মজুদ আছে। মজুদকৃত তেল আগামী দশদিন পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে।