সাক্ষ্য গ্রহণেই চার বছর পার।


Munna প্রকাশের সময় : ১০/০৯/২০২৩, ৯:১৬ অপরাহ্ণ /
সাক্ষ্য গ্রহণেই চার বছর পার।

 মোঃ সুজন আহমেদ শার্শা উপজেলা প্রতিনিধি। চার বছর পার হয়ে গেছে দেশজুড়ে আলোচিত বেনাপোল কাস্টমসের লকার থেকে থেকে ১৯ কেজি স্বর্ণ চুরির ঘটনা। অথচ উদ্ধার হয়নি ওই স্বর্ণ। হদিসও মেলেনি লকারের সেই দুটি চাবি। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলা কেবল সাক্ষ্য গ্রহণেই থমকে আছে। এখানেও মামলার ৩৪ জন সাক্ষীর মধ্যে আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন মাত্র ১০ জন। সাক্ষীরা নির্ধারিত সময়ে আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় মামলাটির বিচারকাজ থমকে আছে বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।লকারের সেই দুই চাবির হদিস মেলেনি : বেনাপোল কাস্টম হাউজের যে লকার থেকে স্বর্ণবারগুলো চুরি হয়েছে; সেই লকারের তিনটি চাবি। চুরি হওয়ার সময়ে একটি চাবি পাওয়া গেলেও বাকী দুটি চাবি পাওয়া যায়নি। এমনকি আইনশৃঙ্খলা সংস্থার তদন্তেও সেই দুটি চাবি তারা হদিস পাননি। সোনাচুরি মামলার প্রধান আসামি রাজস্ব কর্মকর্তা শাহিবুল ইসলামসহ সব আসামি জামিনে রয়েছেন। এই কর্মকর্তা জানান, তিনি তার র্প্বূবতী কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা শহিদুল ইসলামের কাছ থেকে ফাইন কেবিনে থাকা সবস্বর্ণ ও বৈদেশিক মুদ্রা বুঝে পেয়েছিলেন। তবে তাকে ফাইল কেবিনের একটি মাত্র চাবি দেওয়া হয়েছিল। বাকি চাবিগুলো পূর্বের কর্মকর্তা দেয়নি। এ চুরির সাথে আমি জড়িত না। যদি আরো ভালভাবে তদন্ত করা হয় তবে প্রকৃত অপরাধী ধরা পড়বে ও স্বর্ণ উদ্ধার হবে। দোষী না হয়েও আমি চাকুরিচ্যুত।