সাংবাদিক দিপুর অভিযোগে কামাল ও সুলতানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ সুপারকে ডিসির নির্দেশ


Munna প্রকাশের সময় : ২২/০৪/২০২৩, ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ /
সাংবাদিক দিপুর অভিযোগে কামাল ও সুলতানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ সুপারকে ডিসির নির্দেশ

 

স্টাফ রিপোর্টার :

 

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার কেন্দ্রীয় মহাসচিব খন্দকার মাসুদুর রহমান দিপুর বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে সামাজিকভাবে মান-সম্মান ক্ষুন্ন করছে ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের চাঁদবাজ ও অপপ্রচারকারী কামাল প্রধান এবং সুলতান মাহমুদ। এই ঘটনায় ভোক্তভোগী মাসুদুর রহমান দিপু গত ১৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের নিকট সুবিচার চেয়ে একটি লিখিত আবেদন করেন যার স্মারক নং- ৫৬১৪। লিখিত অভিযোগটি গত ১৭ এপ্রিল অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট ব্যবস্থা নিতে জিএম শাখায় প্রেরণ করে যার স্মারক নং- ১০৪৮। পরবর্তীতে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট নারায়ণগঞ্জের পক্ষে ১৮ এপ্রিল সিনিয়র সহকারী কমিশনার নুসরাত আরা খানম প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপারকে নির্দেশনা দেন যার স্মারক নং- ৪৫৪। ঘটনার বিবরণে লিখিত অভিযোগে জানা যায়, প্রতারক কামাল প্রধান, পিতা আবুল প্রধান, সাং ১১৩ বাঘবাড়ী, থানা বন্দর, সুলতান মাহমুদ, পিতা মৃত চাঁন মিয়া, ৫৩/৩ আবেদিন ভিলা, নবাব সুলিমুল্লা রোড, চাষাঢ়া, থানা ও জেলা নারায়ণগঞ্জ গং গত ১২ এপ্রিল ২০২৩ তারিখে রাত আনুমানিক রাত ৯ ঘটিকায় কামাল প্রধান তার নিজ ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে সাংবাদিক দিপুর বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে মিথ্যা মামলা মোকাদ্দমার হুমকি দেয় এবং জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে। এছাড়াও তার পরিচালিত ভুয়া আইডি দৈনিক আজকের নিলকণ্ঠ সহ সুলতান মাহমুদের ফেসবুক আইডি দিয়ে খন্দকার মাসুদুর রহমান দিপুর বিরুদ্ধে ছবি সহ অপপ্রচার চালায়। মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে সামাজিক মান সম্মান ক্ষুন্ন করেছে। কামাল প্রধান ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সুলতান মাহমুদ সভাপতি পরিচয় দিয়ে সাধারণ মানুষকে চাঁদাবাজির জন্য হুমকি দামকি দিয়ে আসছে। এছাড়াও মিথ্যা মামলা মোকদ্দমার ভয়ভীতি দেখাচ্ছে ফেসবুক লাইভে এসে। উল্লেখ্য যে, সুলতান মাহমুদ ও কামাল প্রধান বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধাচারণ সহ বিষেদাগার করে চলেছে। সরকার বিরোধী আন্দোলনের সাথেও জড়িত। এছাড়া বন্দর নিবাসী রুবেল মিয়ার নিকট হতে ১৯ লক্ষ টাকা জমি দেওয়ার নামে নিলে বিগত ২ বছর যাবত জমি না দিয়ে তালবাহানা করে চলছে তারই ধারাবাহিকতায় ঘটনার পরিপেক্ষিতে একটি সংবাদ প্রকাশ পেলে কামাল প্রধান ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিক দিপুর বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট অপপ্রচারে লিপ্তহয়।