শেরপুরের শ্রীবরদীতে জনসচেতনামূলক বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত


Munna প্রকাশের সময় : ২৯/০৩/২০২৩, ৬:৩০ অপরাহ্ণ /
শেরপুরের শ্রীবরদীতে জনসচেতনামূলক বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত
এসডি সোহেল রানা স্টাফ রিপোর্টার,
শ্রীবরদীতে ‘বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে মাদক, জঙ্গিবাদ, ইভটিজিং, নারী নির্যাতন, বাল্য বিবাহ, পানিতে ডুবে এবং বিদ্যুৎস্পৃষ্টে হয়ে অপমৃত্যু প্রতিরোধে শ্রীবরদী থানার প্রত্যন্ত অঞ্চলে সচেতনামূলক বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার (২৯ মার্চ) শ্রীবরদী থানাধীন গড়জরিপা ইউনিয়নের চাউলিয়া বাজার প্রাঙ্গণে শ্রীবরদী থানা পুলিশ কর্তৃক আয়োজিত বিট পুলিশিং সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন জনাব মোঃ কামরুজ্জামান বিপিএম, পুলিশ সুপার, শেরপুর। পুলিশ সুপার মহোদয় তাঁর বক্তব্যের শুরুতে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান সহ ১৫ আগস্ট শাহাদাৎ বরণকারী বঙ্গবন্ধু’র পরিবারের সদস্য, মহান মুক্তিযুদ্ধে ত্রিশ লাখ শহীদ ও দুই লাখ মা–বোন-কে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন। তিনি বলেন বঙ্গবন্ধু একটি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন, একটি স্বাধীন দেশের মানচিত্র উপহার দিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদেরকে সেই স্বপ্ন রূপান্তরের পথ দেখিয়ে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন। ভিশন ২০৪১ বিনির্মাণে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একত্রে এগিয়ে চলেছি। এই উন্নতিতে বাধা হয়ে আসছে বিভ্রান্তকারী কিছু দুষ্ট চক্র। আমি অনুরোধ করবো আপনারা এই দুষ্ট চক্রের ফাঁদে পা-দিবেন না। তাদের মধ্যে একটি হলো সর্বনাশা মাদক। আমাদের অবশ্যই এই মাদক থেকে দূরে থাকতে হবে। তিনি আরও বলেন আমি শেরপুর জেলায় যোগদান করে জুয়া ও মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছি। মাদকের সাথে কারো কোনভাবে সম্পৃক্ততা থাকবেনা সেটা পুলিশ সদস্য হোক, রাজনৈতিক বা অন্য যে কেউ মাদকের সাথে সম্পৃক্ত হলে চরম মূল্য দিতে হবে। আমাদের এখানে আরেকটি সমস্যা আছে যে সমস্যাটা কিন্তু সার্বজনীন। এই সমস্যা থেকে আমাদের মা-বোন কে সচেতন করতে হবে সেটা হল বাল্য বিবাহ। আপনারা জানেন শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষিত মায়ের ভূমিকা অপরিহার্য। একটা জিনিস আমাকে খুব পীড়া দেয় তাহলো শেরপুর জেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হ‌য়ে সর্বাধিক সংখ্যক লোকের মৃত্যু হয়। এ বিষয়টা নিয়ে আমরা কাজ করছি, ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছি। কি কারণে দোষটি কার যে মারা গেল তার বা তার পরিবারের নাকি আমাদের সকলের। তিনি আর বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ আমাদের প্রিয় বাংলাদেশ। আমাদের দেশের জনগণ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান-মুসলমানসহ বিভিন্ন ধর্মে বিশ্বাসী। বিভিন্ন সময়ে স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি-গোষ্ঠী বা দল ভিন্ন ধর্মের বিশ্বাস ও লোকদের ওপর আক্রমণ করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার চেষ্টা করে। তাই এসব সাম্প্রদায়িক অস্থিরতার বিরুদ্ধে সকলকে সচেতন থাকার আহবান জানান। এছাড়াও বিভিন্ন সময় শেরপুরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু’র ঘটনা ঘটে। শিশুগুলোকে রক্ষা করার দায়িত্ব কিন্তু আমাদের। আমি চাইনা যে আর একটি শিশু এভাবে তার পরিবারের অবহেলায় মারা যাক। এ ব্যাপারে অভিভাবকদের আরো সচেতন হওয়ার আহবান জানান । পুলিশিং সেবাকে জনগণের কাছে পৌঁছে দেওয়া, সেবার কার্যক্রমকে গতিশীল ও কার্যকর করা এবং পুলিশের সাথে প্রান্তিক জনসম্পৃক্তা বৃদ্ধি লক্ষ্যে আমাদের এই আয়োজন। তিনি যে কোনো ধরনের অপরাধ সর্ম্পকে তথ্য জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ বা জেলা পুলিশের হট লাইন নম্বরে ফোন করে জানানোর আহবান করেন। জনাব বিপ্লব কুমার বিশ্বাস, অফিসার ইনচার্জ শ্রীবরদী থানা, শেরপুর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জনাব মোহাম্মাদ আবু বকর সিদ্দিক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ), শেরপুর; জনাব রায়হানা ইয়াসমিন, সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল), শেরপুর; জনাব মো: আব্দুল কাদির, সভাপতি, বাংলাদেশ কৃষক লীগ, শেরপুর জেলা শাখা; জনাব এম এ জলিল, চেয়ারম্যান, ১০নং গড়জরিপা ইউনিয়ন পরিষদ, শ্রীবরদী, শেরপুর; বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব মোঃ আবু বকর সিদ্দিক, কমান্ডার ১০নং গড়জরিপা ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, শ্রীবরদী, শেরপুর। বিট পুলিশিং সমাবেশে স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, স্থানীয় জনসাধারণ, জনপ্রতিনিধি, স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী, মসজিদের ইমাম, সনাতন ধর্মাবলম্বী, স্থানীয় ব্যবসায়ী ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।