মাথা থেকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের  চিন্তা বাদ দেন—-ওবায়দুল কাদের


Munna প্রকাশের সময় : ১৩/১০/২০২৩, ৭:২৩ অপরাহ্ণ /
মাথা থেকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের  চিন্তা বাদ দেন—-ওবায়দুল কাদের
 নিজস্ব সংবাদদাতা।
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তত্ত¡াবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য
বিএনপির দাবি প্রত্যাখ্যান করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক
এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আপনারা মাথা
থেকে তত্ত¡াবধায়ক সরকারের চিন্তা বাদ দেন। তত্ত¡াবধায়ক সরকার মরে এখন
ভূত হয়ে গেছে। এ ভূত মাথা থেকে নামান। এটা এখন কবরস্থানে শায়িত।
নির্বাচনে আসনে। নাহলে সব হারাবেন।’ শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) বিকেলে
নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুরে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শান্তি ও উন্নয়ন
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাইয়ের
সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো: বাদলের
সঞ্চালনায় আয়োজিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,
বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতিক), আওয়ামী লীগের
প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, ঢাকা বিভাগীয় আওয়ামী
লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক
এস এম কামাল হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়–য়া,
নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি
নজরুল ইসলাম বাবু, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন
খান নিখিল প্রমুখ।
সামনে জিনিসপত্রের দাম কমে আসবে বলেও আভাস দেন সেতুমন্ত্রী। তিনি
বলেন, ‘অচিরেই তেল, চাল, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম কমে
আসবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভুল বুঝবেন না। তার ওপর আস্থা রাখেন।
তিনি দিনরাত পরিশ্রম করে চলেছেন।’
তিনি বলেন, ‘মির্জা ফখরুল বলেছেন ঢাকাকে অচল করে দেবেন। আমরা
বলতে চাই, দেশের মানুষই আগামীতে বিএনপিকে অচল করে দেবে।
আগামীতে দেশের মানুষই বিএনপিকে অচল করে দেবে। এ নারায়ণগঞ্জই
যথেষ্ট বিএনপিকে রুখে দিতে।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন আওয়ামী লীগের সময় শেষ
কিন্তু প্রকৃত সত্য হলো বিএনপি ও ফখরুলদের সময় শেষ।
‘জো বাইডেনের দুটি সেলফিতে বিএনপি নেতাদের ঘুম হারাম হয়ে
যাচ্ছে’ মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ভারতে জি-২০ সম্মেলন ও আমেরিকাতে নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সেলফিতে সব
পরিষ্কার হয়ে গেছে। তাই এখন বিএনপির অন্তরে জ্বালা। পদ্মা সেতু,
চিটাগাংয়ে টানেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেস, একদিনে শতাধিক সেতু
উদ্বোধনে বিএনপির অন্তর্জ্বালা হয়ে গেছে। বিএনপির সঙ্গে আর কোনো
সমঝোতা চলবে না। তোমরা জনগণের শত্রæ। জনগণের শত্রæর সঙ্গে আওয়ামী
লীগ কোনো সমঝোতা করবে না।’
-ওবায়দুল কাদের
মো: সাদ্দাম হোসেন মুন্না নিজস্ব সংবাদদাতা।
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তত্ত¡াবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য
বিএনপির দাবি প্রত্যাখ্যান করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক
এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আপনারা মাথা
থেকে তত্ত¡াবধায়ক সরকারের চিন্তা বাদ দেন। তত্ত¡াবধায়ক সরকার মরে এখন
ভূত হয়ে গেছে। এ ভূত মাথা থেকে নামান। এটা এখন কবরস্থানে শায়িত।
নির্বাচনে আসনে। নাহলে সব হারাবেন।’ শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) বিকেলে
নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুরে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শান্তি ও উন্নয়ন
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাইয়ের
সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো: বাদলের
সঞ্চালনায় আয়োজিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,
বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতিক), আওয়ামী লীগের
প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, ঢাকা বিভাগীয় আওয়ামী
লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক
এস এম কামাল হোসেন, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়–য়া,
নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের এমপি
নজরুল ইসলাম বাবু, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন
খান নিখিল প্রমুখ।
সামনে জিনিসপত্রের দাম কমে আসবে বলেও আভাস দেন সেতুমন্ত্রী। তিনি
বলেন, ‘অচিরেই তেল, চাল, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম কমে
আসবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভুল বুঝবেন না। তার ওপর আস্থা রাখেন।
তিনি দিনরাত পরিশ্রম করে চলেছেন।’
তিনি বলেন, ‘মির্জা ফখরুল বলেছেন ঢাকাকে অচল করে দেবেন। আমরা
বলতে চাই, দেশের মানুষই আগামীতে বিএনপিকে অচল করে দেবে।
আগামীতে দেশের মানুষই বিএনপিকে অচল করে দেবে। এ নারায়ণগঞ্জই
যথেষ্ট বিএনপিকে রুখে দিতে।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন আওয়ামী লীগের সময় শেষ
কিন্তু প্রকৃত সত্য হলো বিএনপি ও ফখরুলদের সময় শেষ।
‘জো বাইডেনের দুটি সেলফিতে বিএনপি নেতাদের ঘুম হারাম হয়ে
যাচ্ছে’ মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ভারতে জি-২০ সম্মেলন ও আমেরিকাতে নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সেলফিতে সব
পরিষ্কার হয়ে গেছে। তাই এখন বিএনপির অন্তরে জ্বালা। পদ্মা সেতু,
চিটাগাংয়ে টানেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেস, একদিনে শতাধিক সেতু
উদ্বোধনে বিএনপির অন্তর্জ্বালা হয়ে গেছে। বিএনপির সঙ্গে আর কোনো
সমঝোতা চলবে না। তোমরা জনগণের শত্রæ। জনগণের শত্রæর সঙ্গে আওয়ামী
লীগ কোনো সমঝোতা করবে না।