নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে অপহৃতদের উদ্ধার ও অপহরণকারীকে গ্রেফতার


Munna প্রকাশের সময় : ১৪/০৩/২০২৩, ১২:১৫ অপরাহ্ণ /
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে অপহৃতদের উদ্ধার ও অপহরণকারীকে গ্রেফতার

 মোহাম্মদ আবু নাছের, ব্যুরো চীফ নোয়াখালী : নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ব্যবসায়ীসহ তিনজনকে অপহরণের ঘটনায় মমিনুল হক মাসুদ (৩৪) নামে একজন অপহরণকারী সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এসময় অপহৃত ৩ জনকেও উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার দিবাগত রাতে রামপুর ইউনিয়নের তজু কোম্পানীর প্রজেক্ট এলাকা থেকে অপহৃতদের উদ্ধার ও অপহরণকারী মাসুদকে গ্রেফতার করা হয়। সোমবার (১৩ ফেব্রুয়ারী ) বিকেলে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: সাদেকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। উদ্ধারকৃত অপহৃতরা হলো, উপজেলার রামপুর ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ডের আকরাম উদ্দিন রাজ্জাকের বাড়ীর মৃত মজিবুল হকের ছেলে ব্যবসায়ী মাহফুজ আলম (৫৩), চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইদ্রিছ স্বর্ণাকার বাড়ির মৃত নুর আলম স্বর্ণাকারের ছেলে আবদুল হক হারুন (৫৫) ও তার ছেলে ইসমাইল হোসেন রিপন (৩৩)। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ১১ মার্চ রাতে ব্যবসায়ী মাহফুজ আলম তার পরিচালিত অটোরিকশা গ্যারেজটি বন্ধ করে অন্য দু’জনসহ সিএনজি অটোরিকসা করে বাড়ি যাচ্ছিল। এসময় সিএনজি অটোরিক্সাটি চরকাঁকড়া ইউনিয়নের টেকের বাজার এলাকা গেলে তাদেরকে জিম্মি করে ফারুক ইসলাম লাভলু (২৭) ও ইসমাইল হোসেন মিরণের (৩৪) নেতৃত্বে কয়েকজন অপহরণকারীরা তুলে নিয়ে যায়। এরপর অপহৃত মাহফুজ আলমের শ্যালক শামীমকে মুঠোফোনে ফোন করে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এঘটনায় মাহফুজ আলমের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম কোম্পানীগঞ্জ থানায় রোববার লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ রামপুর ইউনিয়নের তজু কোম্পানীর প্রজেক্ট এলাকা অভিযান চালিয়ে ব্যবসায়ী মাহফুজ আলম, আবদুল হক হারুন ও ইসমাইল হোসেন রিপনকে উদ্ধার করে। এসময় অন্যান্য সদস্যরা পালিয়ে গেলেও অপহরণকারী চক্রের মমিনুল হক মাসুদকে পুলিশ গ্রেফতার করে। কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: সাদেকুর রহমান জানান, অপহরণের বিষয়ে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। পালিয়ে যাওয়া অপহরণকারীদের গ্রেফতারের অভিয়ান অব্যাহত রয়েছে।