নোয়াখালীর এক পুলিশ কনস্টেবলের স্মরণীয় ফেয়ারওয়েল


Munna প্রকাশের সময় : ০১/০৬/২০২৩, ১১:০৫ অপরাহ্ণ /
নোয়াখালীর এক পুলিশ কনস্টেবলের স্মরণীয় ফেয়ারওয়েল
মোহাম্মদ আবু নাছের, ব্যুরো চীফ নোয়াখালী : নোয়াখালীর পুলিশ কনস্টেবল মো: লিয়াকত আলী সুসজ্জিত গাড়িতে চড়ে অবসরে গেলেন। দীর্ঘ ৪০ বছরের চাকরি জীবন শেষে অবসরে যাওয়ার দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে বিদায় দেয়া হয় । বৃহস্পতিবার (০১ জুন ) দুপুরে কবিরহাট থানা পুলিশের আয়োজনে এমনই আনন্দঘন পরিবেশে বিদায় নেন লিয়াকত আলী। জানা যায়, বিকেলে বিদায় দেয়ার সময় লিয়াকত আলীর হাতে উপহার তুলে দেন কবিরহাট থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: রফিকুল ইসলাম ও সহকর্মীগণ। অতপর সকল পুলিশ সদস্য সারিবদ্ধ হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে তাকে ফুলের পাপড়ি ছিটিয়ে বিদায় জানান। পরে পুলিশের সুসজ্জিত গাড়িতে করে লিয়াকত আলীকে বেগমগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের গ্রামের বাড়িতে নেয়া হয়। প্রকাশ, কনস্টেবল মো: লিয়াকত আলী বেগমগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের লাউতলি সালাউদ্দিন ডাক্তারের বাড়ির মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে। সংসারে তার স্ত্রী, চার ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। তিনি ১৯৮৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। তিনি দীর্ঘ ৩৯ বছর ৮ মাস দেশের বিভিন্ন থানায় দক্ষতা ও সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন। লিয়াকত আলী বলেন, চাকরি জীবন শেষে এমন সম্মান অনেকের ভাগ্যে জোটে না। আমি আজ সত্যিই আনন্দিত ও গর্বিত । আমার অবসরে যাওয়ার সময় এমন সম্মান প্রদর্শন করার জন্য নোয়াখালী জেলা পুলিশ ও  কবিরহাট থানার পুলিশ সদস্যদেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও অভিনন্দন । কবিরহাট থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: রফিকুল ইসলাম বলেন, পুলিশ কনস্টেবল মো: লিয়াকত আলী অবসরে যাওয়ার পর তাকে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছি আমরা। তাকে বিদায়ী শুভেচ্ছা জানানোসহ উপহার সামগ্রী তুলে দেয়া হয়। প্রবীণ এই পুলিশ সদস্যের চাকরি জীবনের শেষ মুহূর্তটিকে স্মরণীয় করে রাখতে বিশেষ এই আয়োজন করতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো: মোর্তাহীন বিল্লাহ বলেন, পুরো আয়োজনে আমি ছিলাম। অসম্ভব সুন্দর আয়োজন ছিল। আমরা কেউই আবেগ ধরে রাখতে পারি নাই। কনস্টেবল লিয়াকত আলী দীর্ঘ ৪০ বছর নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে অবসরে গেছেন, এটা বাংলাদেশ পুলিশের গর্ব।