নিজের নয় দেশের মানুষের ভাগ্য গড়তে এসেছি -প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 


Munna প্রকাশের সময় : ১৯/০২/২০২৩, ৫:০১ অপরাহ্ণ /
নিজের নয় দেশের মানুষের ভাগ্য গড়তে এসেছি -প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 
আবুল আতা মামুন স্টাফ রিপোর্টার।
নিজের নয় দেশের মানুষের ভাগ্য গড়তে এসেছি। বাংলাদেশ আর পেছনে ফিরে তাকাবে না। কারো কাছে হাত পেতে চলবে না। দেশটা আমাদের, এর ভালো-মন্দ আমরা বুঝি।রোববার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে কালশী বালুর মাঠে মিরপুর-কালশী ফ্লাইওভারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, শহীদ দিবস। মাতৃভাষায় কথার অধিকার অর্জনের জন্য আমার দেশের ছেলেরা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে রক্তের অক্ষরে লিখে দিয়েছিল, মাকে মা বলে ডাকতে চাই। আমি আজকে সেই সকল ভাষা শহীদদের আমার শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। তিনি আরও বলেন, রমজানে খাদ্যপণ্য কিনতে এক কোটি মানুষ বিশেষ সুবিধা পাবে। মানুষের যেন কষ্ট না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।প্রধানমন্ত্রী জানান, বিদ্যুৎ উৎপাদন অনেক খরচ। এতে ভর্তুকি দেয়া সম্ভব না এছাড়া, উচ্চ মূল্যে খাদ্যপণ্য কিনতে হচ্ছে। পরিবহনও খরচ বেড়েছে।পদ্মাসেতু নির্মাণের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, পদ্মাসেতু নির্মাণ একটা বিরাট চ্যালেঞ্জ ছিল। আমাদের ওপর মিথ্যা অপবাদ দিতে চেয়েছিল, এখানে নাকি দুর্নীতি হয়েছে। আমি বলেছিলাম, প্রমাণ করতে হবে দুর্নীতি হয়েছে।তিনি আরও বলেন, কালশী ফ্লাইওভারে ঢাকার যানজট কমবে। এ সময় কালশী বালুর মাঠকে বিনোদন পার্ক ও খেলার মাঠ করার ঘোষণাও দেন তিনি।
আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটের অধিকারে বিশ্বাসী বলেও মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকলে দেশ পিছিয়ে যায়।তিনি আরও বলেন, আমার দেশের অর্থ অন্যকে দিয়ে সেখান থেকে দুর্নীতি করব, এই মানসিকতা আমাদের নেই। এই শিক্ষা বাবা-মা আমাদের দেয়নি।কালশী বালুর মাঠের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও সুধী সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকার ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মুহাম্মদ ইব্রাহিম।