নারায়ণগঞ্জে দুই শিশুসহ তিন মরদেহ উদ্ধার


Munna প্রকাশের সময় : ০৮/০৯/২০২৩, ৭:২৮ অপরাহ্ণ /
নারায়ণগঞ্জে দুই শিশুসহ তিন মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব সংবাদদাতা। নারায়ণগঞ্জ বন্দর উপজেলায় সামির (৯) তিশা (৮) নামে নিখোঁজ দুই শিশু সহোদরসহ ও আল আমিন ভান্ডারি (৪৮) নামে এক কবিরাজের গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল আটটার সময় বন্দর খেয়াঘাটের পাশে শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে ওয়াকওয়ে নির্মাণের জন্য খনন করা ডোবার পানি থেকে নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ থানা পুলিশ দুই সহোদরের এবং দুপুরে ধর্মগঞ্জ চতলার মাঠ এলাকার মৃত তৈয়ুব আলী মেম্বারের বাড়ির নিচতলার একটি বাসা থেকে কবিরাজের মরদেহ উদ্ধার করে। পরিবারের সদস্যদের কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই দুই সহোদরের মরদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর এবং নিহত করিবারজ আল আমিন ভান্ডারির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ (ভিক্টরিয়া) হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। নিহত আল আমিন ভান্ডারি পিরোজপুর জেলার সদর থানার দক্ষিণ পুকুরিয়া এলাকার হারুনুর রশীদের ছেলে। তিনি পেশায় একজন কবিরাজ। তিনি তার তৃতীয় স্ত্রী ও প্রথম পক্ষের ছেলেকে নিয়ে ধর্মগঞ্জ চতলার মাঠ এলাকার ওই ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। অপরদিকে, বন্দর ঘেয়াঘাট এলাকার ডোবা থেকে উদ্ধার হওয়া সামির (৯) ও তার বোন তিশা (৮) উপজেলার আমিন আবাসিক এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে-মেয়ে। তাদের বাবা একজন রিকশাচালক। নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ থানা পুলিশ জানান,পুলিশ পরিদর্শক শহিদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। পরিবারের সদস্যদের এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই দুটি লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আযম মিয়া বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িত খুনিকে গ্রেফতারে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।