আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক -কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা


Munna প্রকাশের সময় : ২৪/১১/২০২৩, ১১:২০ পূর্বাহ্ণ /
আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক -কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) সিদ্ধিরগঞ্জের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা বলেছেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক, জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মেনে চলি। নৌকার স্বার্থে কারো সাথে কখনো আপোষ করিনি। যতদিন বেঁচে আছি ততদিন নৌকার লোক হিসেবেই থাকতে চাই। বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে তিনি গনমাধ্যমে একান্ত সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।

কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা বলেন, ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছি। কলেজ জীবনে একেএম শামীম ওসমানের রাজনীতি করেছি। তাই ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) প্রথম নির্বাচনে শামীম ওসমানের সাথে থেকে তাঁর পক্ষে নির্বাচন করেছি। এরআগে ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিদ্ধিরগঞ্জ যখন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাথে ছিল, তখন আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাতের পক্ষে নৌকা প্রতীকের নির্বাচন করি। তারপর নির্বাচনী আসন পূনর্বিন্যাসের পর ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের মনোনয়নপ্রাপ্ত একেএম শামীম ওসমানের পক্ষে নৌকা প্রতীকের বিজয়ের লক্ষে নির্বাচন করি। ২০১৬ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের দ্বিতীয় নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে নৌকা প্রতীক বরাদ্ধ দেওয়ার পর নৌকার বিজয়ের লক্ষে ডা. আইভীর পক্ষে নির্বাচন করেছি। এরপর ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একেএম শামীম ওসমানকে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দেয়ার পর নৌকার বিজয়ের লক্ষে শামীম ওসমানের পক্ষে নাসিক ৮ নম্বর ওয়ার্ড নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব সফলতার সহিত পালন করি। ২০২১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের তৃতীয় নির্বাচনে পুনরায় মেয়র আইভী নৌকার মনোনয়ন পাওয়ায় নৌকার বিজয়ের জন্য আইভীর পক্ষে নির্বাচন করেছি।

তিনি বলেন, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে নৌকার মাঝি একেএম শামীম ওসমানই হবে। তাই নৌকার বিজয় নিশ্চিত করার জন্য তাঁর পক্ষেই আমরা ব্যাপক ভাবে কাজ করে যাচ্ছি এবং তাঁর দেয়া বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছি। কারণ আমরা বঙ্গবন্ধুর সৈনিক। শেখ হাসিনার নির্দেশ মানি। নৌকা যার আমি তার। এই সহজ বিষয়টিকে একটি দলীয় কুচক্রী মহল তাদের নিজেদের স্বার্থ হাসিল করার লক্ষ্যে চক্রান্ত করে বেড়াচ্ছে। যারা দীর্ঘ দিনের আওয়ামীলীগের প্রাণ, তাদেরকে কটাক্ষ করে আইভী পন্থী, শামীম পন্থী আখ্যা দিয়ে দলে কোন্দল সৃষ্টি করার পায়তারা করছে। আসলে কথাটি তাদের বলতে কষ্ট হয় যে, সবাই নৌকার পক্ষের লোক, আওয়ামীলীগের লোক। এই সত্য কথা বললে কুচক্রী মহলের স্বার্থ হাসিল হবে না। তাই তারা বিভিন্ন সময় গনমাধ্যম কর্মীদেরকে প্রভাবিত করে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার মাধ্যমে অহেতুক বানোয়াট, বিভ্রান্তিকর ও অযৌক্তিক খবর তৈরী করে জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। আমার এলাকার জনগণ যথেষ্ট সচেতন। তাদের বন্ধু হতে পেরেছি বলেই তারা আমাকে তিন তিনবার বিপুল ভোটের মাধ্যমে কাউন্সিলর নির্বাচিত করেছে।