আড়াইহাজারে ত্রিমুখী সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, ৩ পুলিশসহ আহত-২০


Munna প্রকাশের সময় : ৩১/১০/২০২৩, ৪:৩৪ অপরাহ্ণ /
আড়াইহাজারে ত্রিমুখী সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, ৩ পুলিশসহ আহত-২০

নিজস্ব সংবাদদাতা।আড়াইহাজারে বিএনপি-জামায়াতের ডাকা তিনদিনের অবরোধের প্রথম দিনে বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও পুলিশের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে হয়। এতে তিন পুলিশ সদস্যসহ ২০ জন আহত হয়েছে। এসময় অবরোধকারীরা ২টি বাসে ভাংচুর চালায় ।

মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) সকাল ৯টার দিকে আড়াইহাজারের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের  পাঁচরুখী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় গুলির আওয়াজ ও ইট পাটকেল ছুড়াছুড়িতে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

আহত তিন পুলিশ সদস্য হলো, আড়াইহাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন কবির, এএসআই মো: মতিন ও কনস্টেবল মো. নুরুল হক এবং দুই আহত আওয়ামী লীগের নেতা হলো, উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল মোল্লা (৪৫) ও সালতা ইউনিয়নের তাঁতী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আল আমিন চৌধুরী (৩৫)।

এরমধ্যে কনস্টেবল মো: নুরুল হক ও আওয়ামী লীগের ২ নেতাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিএনপির আহতরা হলো, বিএনপির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুকুল ইসলাম রাজীব, উপজেলা বিএনপির সভাপতি জুয়েল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবু, কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক মুছা, জেলা কৃষক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আলম, বিশনন্দী ইউনিয়ন বিএনপির মুজিবর ও খাজা মাঈনুদ্দিন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদের নেতৃত্বে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের  পাঁচরুখীতে বিএনপি নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে। এসময় বিএনপি নেতা-কর্মীরা সড়কের উপর গাছের গুঁড়ি, সিমেন্টের পিলার ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করে। এসময়  লাঠিসোটা হাতে তারা সরকার বিরোধী শ্লোগান দিতে থাকে। 
একই সময় বিএনপির সন্ত্রাস নৈরাজ্যের প্রতিবাদে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা মিছিল বের করলে দুইপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পালটা ধাওয়া ও সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করলে ত্রিমুখী সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় একটি বিআরটিসি বাসসহ দুটি বাস ভাংচুর করে অবরোধকারীরা।

সংঘর্ষে তিন পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হলে টিয়ারসেল ও রবার বুলেট ছুড়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সকাল সোয়া ১০টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এলে মহাসড়কে যান চলাচল শুরু হয়।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল বলেন, আড়াইহাজারের পাঁচরুখী এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বিএনপি নেতাকর্মীরা টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছিল। আমাদের পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা কিন্তু তাদেরকে সেখানে গিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

বিএনপিকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়ার সময় তাদের দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে ও ককটেল বিস্ফোরণে আমাদের তিন পুলিশ সদস্য গুরুতরসহ ৬ জন আহত হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সেখানে পর্যাপ্ত পরিমানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের বর্তমান সার্বিক পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।